সৎ ভাইয়ের সাথে এক বিছানাতেই…..

  

পিএনএস,ডেস্ক:নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জানিয়েছেন নিজের সমস্যার কথা। আমার বয়স ১৭ বছর। আমার সৎ ভাই রয়েছে। তাকে আমি বেশ পছন্দ করি। আমার মা এবং তার বাবা বেশ কিছু দিন হয়েছে বিয়ে করেছেন। আমরা দুজন একসঙ্গে থাকি। সৎ ভাই-বোন হিসাবে দুজনের মধ্যে কোনো সমস্যা ছিল না। আমরা এক বিছানাতেই থাকতাম। সারারাত জেগে থাকতাম এবং সকাল পর্যন্ত কথা বলতাম। অনেক সময় সে আমার হাত ধরে থাকতো এবং আমার মুখ নিয়ে নানা ধরনের খেলা খেলতো। এক সময় আমি ঘুমিয়ে যেতাম। ধীরে ধীরে আমাদের ঘনিষ্টতা বাড়তে থাকে। আমি ওর গায়ের ওপর শুতে থাকি। কিন্তু সে কখনো কোনো মেয়েকে চুমু পর্যন্ত খায়নি। আবার আমি কুমারিত্ব হারিয়েছি। সৎ ভাইয়ের সঙ্গে এ সম্পর্ক এগিয়ে নিতে ভালো লাগছে আমার। কিন্তু জানি না, সে আমাকে পছন্দ করে কিনা। এখন আমি কি করতে পারি?


পরামর্শ:

আপনার সমস্যাটি আমি বুঝতে পারছি আপু, খুব ভালোভাবেই বুঝতে পারছি। তাই শুরুতেই বলে নিচ্ছি, আপনাদের বাসার পরিস্থিতির কারণেই ঘনিষ্টতার সুযোগ বেড়েছে। এমন এক বয়সে আপনারা এ সুযোগ পেয়েছেন যেখানে দুর্ঘটনা ঘটবেই। তার প্রেমে পড়বেন সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। সেও আপনার প্রতি দুর্বল হয়ে পড়বে।

কিন্তু এই অনৈতিক সম্পর্কের বিষয়ে আপনাকে বেশি আগ্রহী বলে মনে হচ্ছে। এটা কতটা ক্ষতিকর হতে পারে তাও বলা যায় না। আপনাদের দুজন বাবা-মায়ের বিয়ের পর নিজেরাও কাছাকাছি থাকার সুযোগ পাচ্ছেন। একসঙ্গে এক বিছানায় শোয়ার কারণে দুজনই কাছাকাছি হওয়ার সুযোগ পেয়েছেন।

সম্পর্ক এগিয়ে নিতে নিজের মতামত এবং পছন্দের বিষয় বুঝতে হয়। দুজন পরিণত মানুষ একসঙ্গে একটি কক্ষে থাকা মানেই যে এমনটা ঘটবে তার কোনো বিষয় নয়। যখন আপনি মনে করছেন যে, ছেলেটিকে নিয়ে আপনার মনে কিছু তৈরি হচ্ছে, সে ক্ষেত্রে এত দ্রুত জড়িয়ে পড়তে নেই। কারণ আরো ভালোমতো ভেবে নিতে হবে যে, এই অনুভূতিগুলো আসলেই সত্য কিনা?
বিশেষজ্ঞ বলছেন, আমার মনে হয় না যে এ সম্পর্ককে যৌনতার দিকে এগিয়ে নেওয়া উচিত। আপনারা দুজনই এমন বয়সে উপনীত যেখানে আবেগ খুব বেশি কাজ করবে। এখানে আপনাদের বাবা-মায়ের দায়িত্বজ্ঞানহীনতার কথাও বলা যায়। আপনাদের দুজনকে কিভাবে তারা এভাবে থাকার সুযোগ করে দেন?

এখানে আসলে দুজনের একসঙ্গে এভাবে না থাকাই উচিত। দুজন পৃথক থেকে দেখা দরকার আসলেই দুজন দুজনকে পছন্দ করেন কি না। তা ছাড়া ছেলেটিকে পিছিয়ে যেতে বলা উচিত। তার আগে উচিত নিজেকে পিছিয়ে আনা।

সূত্র : গার্ডিয়ান


পিএনএস/বাকিবিল্লাহ্

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech