নভেম্বরে ইরাকি সরকারি বাহিনীর ১৯৫৯ সদস্য নিহত

  

পিএনএস: চলতি বছরের নভেম্বরে ইরাকজুড়ে নিরাপত্তা বাহিনীর অন্ততপক্ষে ১,৯৫৯ জন সদস্য নিহত হয়েছেন বলে জাতিসংঘ জানিয়েছে।

বিবিসি বলছে, অক্টোবর মাসে নিরাপত্তা বাহিনীর যে সংখ্যক সদস্য নিহত হয়েছিলেন নভেম্বর মাসে তার তিনগুন নিহত হয়েছেন বলে পরিসংখ্যান উঠে এসেছে।

ইরাকের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মসুল ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গিদের দখলমুক্ত করার লক্ষ্যে দেশটির সরকারের অভিযান শুরু করার প্রেক্ষাপটেই নিহতের সংখ্যা বেড়েছে।

নভেম্বরে ৯২৬ জন বেসামরিক সাধারণ মানুষ নিহত হয়েছেন। অপর ৯৩০ জন আহত হয়েছেন।

ইরাকে নিযুক্ত জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি জন কুবিস বলেন, হতাহতের এই সংখ্যা ‘বিস্ময়কর’।

তিনি বলেন, ইরাকি বাহিনী জানিয়েছে, মসুল পুনরুদ্ধারে ছয়সপ্তা ধরে চালানো অভিযানে বেসামরিক মানুষ হতাহত হওয়ার ঘটনা এড়াতে তারা সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়েছিলেন।

গেল মাসে বাগদাদ প্রদেশে ধারাবাহিক বোমা হামলায় ১৫২ জন সাধারণ মানুষ নিহত ও ৫৮১ জন আহত হয়েছেন।

আর মসুল যে প্রদেশে অবস্থিত সেই নাইনভে প্রদেশে নিহত হয়েছেন ৩৩২ জন সাধারণ মানুষ, আহত হয়েছেন ১১৪ জন।

তবে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের অঞ্চল কিংবা বিভাগভিত্তিক হতাহতের পরিসংখ্যান প্রকাশ করা হয়নি।

ওই বাহিনীতে সেনা, পুলিশ, কুর্দি পেশমেরগা যোদ্ধা, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বাহিনী এবং আধা-সামরিক বাহিনীর সদস্যরা মিলিতভাবে অংশ নিচ্ছেন।

আন্তর্জাতিক কমিটি ফর দ্য রেড ক্রস (আইসিআরসি) হুঁশিয়ার করে জানিয়েছে, মসুল পুনরুদ্ধারে কয়েকমাস লেগে যেতে পারে। শহরটির আইএস নিয়ন্ত্রিত অংশে ১৫ লাখ সাধারণ মানুষ বসবাস করছেন যারা ঘর-বাড়ি ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাওয়ার চেষ্টা করছেন।

ইতিমধ্যে প্রায় ৭৭ হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত অবস্থায় রয়েছেন। তাদের অনেকে সরকারের পরামর্শে নিজেদের বাড়িতেই অবস্থান করছেন।

পিএনএস/বাকিবিল্লাহ্

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech