রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় মৃতদেহ উদ্ধার ৩

  

পিএনএস : রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় নবজাতকসহ তিন নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করে ঢামেক মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। রাজধানীর খিলগাঁও প্রভাতিবাগ এলাকার একটি বাসা থেকে মুক্তা আক্তার (২৬) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে খিলগাঁও থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকেল চারটার সময় লাশটি উদ্ধার করা হয়। খিলগাঁও থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) শামছুল হক জানায়, স্বামী আ. রহমানের সঙ্গে ওই বাসায় ভাড়া থাকতো। দুপুরে পারিবারিক কলহের জের ধরে ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করে। এদিকে দারুস সালাম থানার বাগানবাড়ি এলাকার একটি বাসায় রুমানা বেগম (২০) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

দারুস সালাম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আ. জলিল জানায়, গত অক্টোবরে স্বপন আলী নামের ছেলেকে বিয়ে করে উক্ত বাসায় ভাড়া থাকতো। সকালে স্বামী-স্ত্রী ঝগড়া করে স্বামী ঘর থেকে বের হয়ে যায়। কিছুক্ষণ পর রুমানা তার স্বামীকে ফোন দিয়ে বলে, আমাকে মাফ করে দিও, আমার জন্য দোয়া করো। স্বামী বাসায় ফিরে দেখে রুমানা ঘরের ফ্যানের সাথে ওড়না দিয়ে ঝুলে আছে। পরে পুলিশ কে খবর দিলে পুলিশ এসে ঢামেক মর্গে পাঠায়। এদিকে মুগদার উত্তর মান্ডার একটি বাসায় নাসিমা আক্তার (২৫) নামের এক নারী ওষুধ খেয়ে অবৈধ গর্ভপাতের সময়, গর্ভের মেয়ে শিশু সহ ঐ নারীর মৃত্যু হয়েছে। পরে পুলিশ খবর পেয়ে দুপুরে দুজনের লাশ উদ্ধার করে রাতে মর্গে পাঠায়।

মুগদা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এনামুল হক জানান, নাসিমা রংপুর জেলার তৌফিক মিয়ার স্ত্রী। গত পাঁচ ছয় দিন আগে মান্ডায় বড় বোন আন্জুয়ারা বেগমের বাসায় বেড়াতে আসে। বোন বাসায় না থাকায় দুপুরে সে গর্ভপাতের ওষুধ খায়।পরে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে গর্ভের মেয়ে শিশু ও মা মারা যায়।ওসি জানান নাসিমার বোন থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করেছে। লাশ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech