মাদক ব্যবসায়ীদের সংশোধনের সুযোগ দিলেন কালীগঞ্জ থানা পুলিশ

  

পিএনএস, কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি : অন্ধকার জীবন ছেড়ে আলোকিত জীবনে ফিরতে সুযোগ দিচ্ছি ভালো হওয়ার জন্য কালীগঞ্জ থানা পুলিশ প্রশাসন। মাদক ব্যবসায়ী দুলাল, বাচ্চু ও আফসারকে অন্ধকার জগৎ ছেড়ে আলোকিত জীবনে ফেরার সুুযোগ দেওয়া হয়েছে। তারা মাদক ব্যবসা করবে না বলে প্রতিশ্রুতি দেয়ায় তাদের ইতিবাচক মনোভাবের সুযোগ দিলেন কালীগঞ্জ থানা পুলিশ প্রশাসন। স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দদের উপস্থিতিতে গত মঙ্গলবার রাতে কালীগঞ্জ থানায় এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন পুলিশ প্রশাসন।

কালীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এক সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) পঙ্কজ দত্ত বলেন, মাদক একটি বড় সমস্যা। মাদকের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ প্রশাসন। আমরা অনেক মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করে কোর্টে চালান দেই। কিছুদিন পর সে জেল থেকে ছাড়া পেয়ে পুনরায় সে মাদক ব্যবসায়ে জড়িয়ে পড়ে। একজন মাদক ব্যবসায়ী কিছুদিন মাদক ব্যবসা করার পর নিজে সংশোধন হয়ে ভালো হওয়ার চেষ্টা করলেও তারা পুলিশি ও স্থানীয় সন্ত্রাসীদের হয়রানির শিকার হয়। ভালো হওয়ার প্রবল ইচ্ছা থাকার সত্ত্বেও তারা ভালো হতে পারে না। তাই যারা স্বেচ্ছায় এই অন্ধকার পথ ছেড়ে আলোর পথে আসতে চায় তাদের ভালো হওয়ার জন্য সার্বিক সহযোগিতা করতে উদ্যোগ নিয়েছে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ প্রশাসন।

মাদক ব্যবসায়ীদের ভালোভাবে বাঁচার সুযোগ দিতে চাই। যেসব মাদক ব্যবসায়ী মাদক ব্যবসা ছেড়ে দিতে চায় এবং সুস্থধারা জীবনে ফিরতে চায় তাদের কোনো রকম পুলিশি হয়রানি করা হবে না। পরিচ্ছন্ন জীবন গড়তে তাদের সর্বাধিক সহযোগিতা করবে পুলিশ প্রশাসন। যারা ভালো হবে না তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে হুশিয়ারি করে দেয় পুলিশ প্রশাসন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) পঙ্কজ দত্ত ও কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু বকর মিয়া মাদক ব্যবসায়ী মো. দুলাল বাগমারকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায় ভালো হওয়ার জন্য।

এছাড়া কালীগঞ্জ পৌরসভার ভাদার্ত্তী গ্রামের নেয়ামত আলীর ছেলে মাদক ব্যবসায়ী মো. বাচ্চু মিয়া প্রতিদিন থানায় এসে হাজিরা দিয়ে যায়। সে ভালোভাবে বাঁচতে চায় মাদক ব্যবসা সে করবে না। সে ওয়াদা করছে সে জীবনে সংশোধনী করতে চায়। মরণ ব্যাধি মাদক ব্যবসা সে করবে না। তাকেও ভালো হওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। নাগরী ইউনিয়নের মাদক ব্যবসায়ী আফসার মাদক ছেড়ে দেওয়ার অঙ্গীকার করায় তাকে ভালো হওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি আবু বকর মিয়া বলেন, দুলাল মাদক ব্যবসা করবে না বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তাকে সংশোধন হওয়ার সুযোগ দেয়া হয়েছে। যদি সে ভালো না হয় তো কঠোর শাস্তি হবে। সে জামালপুর ইউনিয়নের জামালপুর গ্রামের মৃত আফসার উদ্দিন বাগমারের ছেলে। তার নামে থানায় দুটি মামলা রয়েছে। সে দুই/তিন বছর যাবত জামালপুর ইউনিয়নের জামালপুর গ্রামে মাদক ব্যবসা করছে। তাকে আমরা নজরে রাখবো। সুপার সুপারের নির্দেশনায় মাদক ব্যবসাকে সংশোধন হওয়ার সুযোগ দিয়ে ভালো পরিবেশ সৃষ্টি করতে চাই।

মাদক ব্যবসায়ী মো. দুলাল বাগমার বলেন, আমি মাদক বিক্রি করবো না । আমি ভালোভাবে বাঁচতে চাই। আমাকে ভালো হওয়ার সুযোগ দেন। আমি সমাজে সুন্দর ভাবে বাঁচতে চাই । তার ১ ছেলে ছেলে প্রাণ-আরএফএলে চাকরি করে। মেজো এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে । আর ছোট দুই ছেলে মাদ্রাসায় লেখাপড়া করে। তাদের জীবনের কথা ভেবে এবং সমাজে সম্মান পেতে সে মাদক ব্যবসা ছেড়ে ভালো হতে চায়।

কথা গুলো এক মাদক ব্যবসায়ী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল)র নিকট বলেন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পঙ্কজ দত্ত মাদক ব্যবসায়ী দুলাল বাগমারের কথাগুলো ইতিবাচক নিয়ে তাকে সংশোধন হওয়ার সুযোগ দেওয়ার দরকার মনে করে তিনি মঙ্গলবার গাজীপুর পুলিশ সুপারের নিকট দুলালকে নিয়ে যান। মাদক ব্যবসায়ী দুলাল সে মাদক ব্যবসা আর করবে না। ভালো হওয়ার সুযোগ চায়। পুলিশ সুপার ভালো হওয়ার জন্য তাকে সুযোগ দেন।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech