যেমন হতে পারে রাশিয়া-সৌদির আজকের একাদশ

  

পিএনএস ডেস্ক :সিএসকে মস্কো, জেনিত এবং ডায়নামো কিয়েভ এই তিন ক্লাবের খেলোয়াড় নিয়েই মূলত রাশিয়া বিশ্বকাপ দল। ইংলিশ, স্প্যানিশ কিংবা ইতালিয়ান ক্লাবের খেলোয়াড় নেই বললেই চলে। রাশিয়ার ক্লাবেই খেলে দেশটির খেলোয়াড়রা। তাই রাশিয়ার নিজস্ব ফুটবলের ধরণ দেখার ভালো সুযোগ আছে এই ম্যাচে।

আবার সৌদি আরবের ক্ষেত্রেও তাই। দলের ২৩ সদস্যের ১৮ জন খেলেন আল হিলাল এবং আল আহলিতে। সৌদির সেরা দুই ক্লাব এই দুটি। তারাও তাদের নিজস্ব ঢংয়ের ফুটবল খেলবে। তাই এই ম্যাচ কোন দেশের ফুটবল সংস্কৃতি কত এগিয়ে। ফুটবল দর্শনে কোন দেশ ভালো এটাও দেখা যাবে।

শক্তিমত্তায় অবশ্য দুই দেশই প্রায় সামান। রাশিয়ার র্যাংতকিং ৭০ আর সৌদি আছে ৬৭ নম্বরে। তবে স্বাগতিক রাশিয়ার জন্য ভালো খবর হলো বিশ্বকাপের ৮৮ বছরের ইতিহাসে প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক দল হারেনি।

রাশিয়ার সম্ভাব্য একাদশ


গোলরক্ষক: অ্যাকিনফিভ

ডিফেন্ডার: মারিয়ো ফার্নান্দেস, কুদরিশভ, কুতেপোভ, গ্রানাত।

মিডফিল্ডার: জিরকোভ, জুবনিন, জাগোয়েভ, গোলোভিন।

ফরোয়ার্ড: মিরানচুক, জুবা।

কোচ: স্টানিসলেভ চেরচেশভ

সোভিয়েত ইউনিয়ন জাতীয় দলের হয়ে ফুটবল খেলেছিলেন। ১৯৯০-৯১ সালে ৮ ম্যাচ খেলেছিলেন স্টানিসলেভ চেরেচেশভ। পজিশন গোলরক্ষক। ১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যাওয়ার পর ক্রান্তিকালীন ফুটবল টিম সিআইএস নামের দলের হয়ে ২ ম্যাচ খেলেছিলেন। এরপর রাশিয়া জাতীয় দলের জার্সি গায়ে জড়ান ৫৪ বছর বয়সী সাবেক এ ফুটবলার।

১৯৯২ থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত রুশদের হয়ে ৩৯ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা আছে চেরচেশভের। ২০০২ সালে স্পার্তাক মস্কোতে খেলে সব ধরনের ফুটবল থেকে বিদায় নেন তিনি। এরপর দু'বছরের মধ্যে কোচিং ক্যারিয়ারও শুরু করেন চেরচেশভ। অস্ট্রেলিয়া এবং রাশিয়ার ক্লাব কোচ দিয়ে নতুন ক্যারিয়ার শুরু করেন। ১১ আগস্ট ২০১৬ সালে জাতীয় দলের কোচ হিসেবে তাকে নিয়োগ দেয় রাশিয়ান ফুটবল ফেডারেশন।

সৌদি আরবের সম্ভাব্য একাদশ


গোলরক্ষক: আল মোসাইলেম

ডিফেন্ডার: আল শাহরানি, ওসামা হাসাও, ওমার হাওসাওয়ে, আল হারবি।

মিডফিল্ডার: ওতায়েফ, আল জসিম, আল সেহরি, আল ডওসারি।

ফরোয়ার্ড: আল মুয়ালাদ, আল সালাউহ।

কোচ: হুয়ান অ্যান্তোনিও পিজি

জন্ম আর্জেন্টিনায়। তবে খেলেছেন স্পেন জাতীয় দলের হয়ে। শুরুতে আর্জেন্টিনার ক্লাব রোজারিও সেন্ট্রালের হয়ে খেলেছিলেন। ১৯৯৩ সালে পাড়ি জমান স্পেনে। লা লিগার ক্লাব ভ্যালেন্সিয়ার জার্সি গায়ে জড়ান। এই ক্লাবে এক বছর ছিলেন। ১৯৯৪ সালে স্পেন জাতীয় দলে অভিষেক ঘটে হুয়ান অ্যান্তোনিও পিজির। পাঁচ বছর লা রোজাদের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। ১৯৯৬ ইউরো এবং ১৯৯৮ বিশ্বকাপেও খেলেছিলেন।

স্পেনের হয়ে ২২ ম্যাচে ৮ গোল করেছিলেন এ স্ট্রাইকার। তার মাঝে বার্সেলোনার হয়েও খেলেছিলেন পিজি। ১৯৯৬ থেকে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত কাতালানদের হয়ে খেলা পিজি স্প্যানিশ সুপার কাপ, উয়েফা সুপার কাপ এবং কোপা দেল রের শিরোপা জিতেছিলেন। বার্সার জার্সি গায়ে ৪৮ ম্যাচে ১১ গোল আছে তার।

২০০২ সালে ফুটবলকে বিদায় জানানোর তিন বছর পর কোচিং ক্যারিয়ার শুরু করেন পিজি। আর্জেন্টিনা ও স্পেনের বিভিন্ন ক্লাবের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। তবে পিজি বেশি আলোচিত হয়েছেন চিলি জাতীয় দলের কোচ থাকার সময়। তার হাত ধরে ২০১৬ কোপা আমেরিকায় চ্যাম্পিয়ন হয় চিলি।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech