গোল উৎসব করে জয়ে ফিরল বার্সা

  

পিএনএস ডেস্ক : একে তো সবশেষ ম্যাচে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের কাছে ০-১ গোলে হার, তার সঙ্গে আবার গত বুধবার (২৫ নভেম্বর) ফুটবল কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার মৃত্যু- সবমিলিয়ে খুব একটা স্বস্তিজনক অবস্থায় ছিল না বার্সেলোনা। এ অবস্থায় খেলতে নেমেই ওসাসুনার বিপক্ষে দারুণ এক জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে কাতালান ক্লাবটি।

শনিবার রাতে স্প্যানিশ লা লিগার ম্যাচে দুর্বল দল আলাভেসের কাছে ০-২ গোলে হেরেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। ফলে সবার আগ্রহ ছিল আজ (রোববার) ওসাসুনার বিপক্ষে কী করে বার্সেলোনা?- তা দেখার। নিজ দলের সমর্থকদের হতাশ করেননি লিওনেল মেসি, অ্যান্তনিও গ্রিজম্যানরা। মাঠ ছেড়েছেন ৪-০ গোলের সহজ জয় নিয়েই।

বার্সেলোনার ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যুতে খেলা শুরুর আগে ম্যারাডোনার প্রতি সম্মান জানানোর লক্ষ্যে বার্সেলোনা ও ওসাসুনার খেলোয়াড়রা সেন্টারের চারপাশে গোল হয়ে দাঁড়ান। কিক অফের বল রাখার স্থানে রাখা হয় ম্যারাডোনার বার্সেলোনার জার্সি। যে ক্লাবে দুই বছর খেলেছিলেন ফুটবলের এই মহানায়ক।

এছাড়া ম্যারাডোনার বাঁধাইকৃত জার্সির প্রদর্শনীও করা হয় এ সময়। দর্শকশূন্য গ্যালারিতে রাখা হয় ম্যারাডোনার জার্সি ও বার্সেলোনার কালো পতাকা। পরে মাঠের খেলায়ও দারুণ এক গোল করে সেটি ম্যারাডোনার প্রতি উৎসর্গ করেন বার্সা অধিনায়ক লিওনেল মেসি। যা সৃষ্টি করে এক অনিন্দ্য সুন্দর মুহূর্তের।

ম্যাচের ৭৩ মিনিটের সময় ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাম পায়ের জোরালো শটে দলের চতুর্থ ও ম্যাচে নিজের প্রথম গোলটি করেছেন মেসি। এরপর নিজের স্বভাবসুলভ স্বাভাবিক উদযাপনের পরই ম্যারাডোনাকে সম্মান জানানোর সুযোগ খুঁজে নেন তিনি।

মাঠে নামার আগেই বার্সেলোনার জার্সির পরে এসেছিলেন নিওয়েলস ওল্ড বয়েজের জার্সি, অপেক্ষা করছিলেন শুধু কাঙ্ক্ষিত গোলের। ম্যাচের ৭৩ মিনিটের সময় গোল করেই বার্সার জার্সি খুলে ফেলেন মেসি এবং নিওয়েলসের জার্সি পরে ঠিক ম্যারাডোনার মতোই গোল উদযাপন করেন।

জার্সি খোলার কারণে অবশ্য হলুদ কার্ড দেখতে হয়েছে বার্সেলোনা অধিনায়ককে। কিন্তু তাতে কী? ফুটবল ঈশ্বর দিয়েগো ম্যারাডোনাকে এমন সম্মান জানানোর সুযোগ তো আর প্রতিদিন পাবেন না লিওনেল মেসি! তাই এ হলুদ কার্ড দেখেও তার মুখে ছিল আকর্ণ বিস্তৃত এক হাসি।

মেসির আগেই অবশ্য গোলের তালিকায় নাম লেখান ব্রাথওয়েট, কৌতিনহো ও গ্রিজম্যান। ম্যাচের ২৯ মিনিটের সময় প্রথম গোলটি করেন ব্রাথওয়েট। প্রথমার্ধের বিরতির আগে ৪২ মিনিটের মাথায় ব্যবধান দ্বিগুণ করেন গ্রিজম্যান। পরে দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের ৫৭ মিনিটে গ্রিজম্যানের এসিস্টেই তৃতীয় গোলটি করেন কৌতিনহো।

বার্সেলোনার জয়ের ব্যবধান অবশ্য আরও বড় হতে পারত। ম্যাচের ৭০ মিনিটের সময় ঠাণ্ডা মাথার ফিনিশিংয়ে বল জালে প্রবেশ করান ওসুমানে দেম্বেলে। কিন্তু অফসাইডের কারণে সেটি ভিডিও এসিস্ট রেফারির মাধ্যমে বাতিল করে দেয়া হয়। ফলে ৪ গোলের জয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাদের।

এ জয়ের ফলে পয়েন্ট টেবিলের দুই ধাপ এগিয়ে বার্সেলোনার। এখন ৯ ম্যাচে ৪ জয় ও ২ ড্রতে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে তাদের অবস্থান অষ্টম। চির প্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ ১০ ম্যাচে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে চার নম্বরে। রিয়ালের সমান ম্যাচে ২৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষস্থান দখল করে রেখেছে রিয়াল সোসিয়েদাদ।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন