দিনভর গুপ্তধন খুঁজে হতাশ গ্রামবাসী

  

পিএনএস: ভারতের রাজস্থানের টঙ্ক জেলার এক গ্রামে খবর ছড়িয়েছিল যে মাটি খুঁড়লেই স্বর্ণমুদ্রা পাওয়া যাচ্ছে। খবর শুনেই মাটি খোঁড়ার জন্য প্রস্তুত হয়ে যায় গ্রামবাসী। খবর ছড়িয়ে পড়ে পাশের গ্রামগুলোতেও। মাটি খোড়ার কোদাল, শাবল নিয়ে হাজির শতাধিক মানুষ।
নারী-পুরুষ এমনকি শিশুরাও যেন তখন নেমে পড়েছে উৎসবে। শাবল, কোদাল - যে যেমন পেরেছেন, তেমন যন্ত্র দিয়ে খুঁড়তে শুরু করেছিলেন মাটি।
স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে জানায়, কোনও দিন তিনশো, কোনও দিন চার মানুষ হাজির হচ্ছিলেন মালপুরা থানা এলাকার জানকিওয়ালা গ্রামে।
জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপারিন্টেডেন্ট রতন লাল ভার্গব বলেন, ‘জানকিওয়ালা গ্রামে স্বর্ণ মুদ্রা পাওয়া যাচ্ছে মাটি খুঁড়লেই, এরকম একটা গুজব কেউ বা কারা ছড়িয়েছিল। হোয়াটস্অ্যাপের মাধ্যমে খবরটা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। শয়ে শয়ে মানুষ গত কয়েকদিন ধরে ওখানে গিয়ে মাটি খুঁড়তে শুরু করেছিলেন। স্থানীয় আধিকারিকরা গিয়েছিলেন গ্রামটিতে।’
গত কয়েকদিন ধরে রাজস্থানের টঙ্ক জেলার ওই গ্রামটিতে এই মাটি খুঁড়ে গুপ্তধন খোঁজা শেষ হয়েছে। প্রশাসন যে কয়েকজন আধিকারিককে জানকীওয়ালা গ্রামে পাঠিয়েছিল মানুষকে বুঝিয়ে শুনিয়ে বাড়ি পাঠাতে, তাঁদের মধ্যে ছিলেন মালপুরার তহশীলদার সুভাষ গোয়েল।
গোয়েল বলেন, ‘গ্রামের লোককে আমরাতো বুঝাতেই পারছিলাম না যে মাটির নিচে গুপ্তধন থাকার খবরটা একটা গুজব। শেষমেশ মেশিন দিয়ে ওই জায়গার মাটি সম্পূর্ণ তুলে ফেলে সবাইকে দেখিয়ে দিয়েছি যে কোথাও কোনও গুপ্তধন নেই। আজ আর নতুন করে কেউ আসেনি।’
স্বর্ণমুদ্রা বা গুপ্তধন পাওয়ার গুজব ভারতের বিভিন্ন জায়গায় এর আগেও ছড়িয়েছে। আর এরকম কোনও খবর ছড়ালেই কখনও শয়ে শয়ে, কখনও আবার হাজারে হাজারে মানুষ জড়ো হয়ে যান। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই গুপ্তধন অধরাই থেকে যায়, কারণ খবরগুলোই যে গুজব! বিবিসি বাংলা

পিএনএস/মো: শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech