বরিশালে গলা কাটা ব্যবসা করছে পোশাক ব্যবসায়ীরা

  

পিএনএস, বরিশাল প্রতিনিধি : বরিশালে ঈদ যতই এগিয়ে আসছে, ক্রেতাদের ভিড় সামলাতে ততই হিমশিম খাচ্ছেন শোরুমের বিক্রেতারা। তবে প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও ঈদের তৈরি পোশাকের মূল্য ২/৩ গুন বেশি রাখা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন ক্রেতারা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে,বরিশাল নগরের বিবির পুকুর পাড়ের পশ্চিম পাশে অবস্থিত আমব্রেলা, ও ইজি হেমায়েত উদ্দিন সড়কে অবস্থিত ক্যাটস আই, নেক্স্ট প্লাস (ব্রান্ড সপ), জেমিনিস গার্মেন্টস, লাকী গার্মেন্টস, মিথুন গার্মেন্টস, ফ্যাশন প্লাস, ব্যাবিলন, স্মার্ট ফ্যাশন হাউজ সহ বেশ কয়েকটি দোকনে ঈদকে কেন্দ্র করে ক্রেতাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত মূল্য রাখা হচ্ছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের। শুধু তাই নয়, ক্রেতারা অভিযোগ করে বলেন, একদিকে পুরনো ডিজাইনের পোশাক, অন্যদিকে দাম বেশি থাকায় পোশাক কিনতে আমাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে।

শহরের বিভিন্ন মার্কেটে ঘুরে দেখা গেছে, দাম কিছুটা বেশি হলেও তৈরি পোশাকের বেশ কদর বেড়েছে। কিনছেন তাদের পছন্দের পোশাক। এবার শোরুমগুলোতে পাঞ্জাবির বেশ কদর রয়েছে। এসব পাঞ্জাবি ১ হাজার’ থেকে ৪ হাজার টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে। আর বাচ্চাদের পাঞ্জাবির দাম ৮শ’ থেকে ২ হাজার টাকা। তবে থ্রি পিচের ও চাহিদারও কমতি নেই। এছাড়া বিভিন্ন ডিজাইনের থ্রি পিচ শোরুমগুলোতে শোভা পাচ্ছে। এসব থ্রিপিচ দেড় হাজার থেকে শুরু করে বিভিন্ন দামের মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে। সেই সঙ্গে এবারের ঈদ সামনে রেখে এই প্রতিষ্ঠান নানা ডিজাইনের ও দামের পোশাক বাজারে এনেছে। শাড়ি, থ্রি-পিস, পাঞ্জাবি, ফতুয়া থেকে শুরু করে নারী-পুরুষ-শিশু সবার জন্যই বিভিন্ন ডিজাইন ও দামের পোশাকে সমৃদ্ধ এখন শহরের মার্কেটের শো-রুম গুলোতে এসছে।

ক্রেতাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত নাম নেওয়ার বিষয়টি নিয়ে বরিশাল জেলা প্রশাসক মো: হাবিবুর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি জানান,পোশাক বিক্রির ক্ষেত্রে নির্দারিত লাভের চেয়ে বেশি মূল্যে বিক্রি করা আইনত অপরাধ। গতকাল শনিবার থেকে আমাদের টিম মাঠে কাজছে। ক্রেতাদের অভিযোগ তদন্ত করে সত্যতা মিললে ব্যাবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech