শরীয়তপুরে দু'পক্ষের সংঘর্ষ, দুই শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ

  

পিএনএস ডেস্ক : শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বিলাশপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. কুদ্দুস বেপারীর বাড়িতে প্রতিপক্ষ বর্তমান চেয়ারম্যান আবু তাহের সরদারের লোকজন হামলা করে বলে অভিযোগ উঠেছে।

আজ রবিবার সন্ধ্যায় বিলাশপুর ইউনিয়নের মুলাই মাদবরকান্দির সাবেক চেয়ারম্যান মো. কুদ্দুস বেপারীর বাড়িতে বিলাশপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আবু তাহের সরদারের প্রায় শতাধিক লোকজন গিয়ে বোমা বিস্ফোরণ ঘটায় ও বাড়িঘর ভাঙচুর করে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে উভয়পক্ষের পাঁচজন আহত হয়। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

মুঠোফোন মো. কুদ্দুস বেপারী বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান আবু তাহের সরদারের প্রায় শতাধিক লোকজন আমার বাড়িতে বোমা বিস্ফোরণ ঘটায় ও ঘর ভাঙচুর করে। তাদের বাধা দিলে তমিজ খান (৩০) সোয়ান বেপারী (২০) লিটন সরদার (২২) শাকিল সরদার (২৫) আহত হয়। আহতদের চিকিৎসার জন্য জাজিরা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয় জানতে চাইলে বর্তমান চেয়ারম্যান আবু তাহের সরদার বলেন, এ অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। তিনি নিজে তাঁর লোকজন জলিল মাদবরের বাড়ির কাছে হঠাৎ করে আক্রমণ করে। আমার লোকজন মারামারি করে না। ফারুক হাওলাদার ও মোস্তফার সঙ্গে মিলে সাবেক চেয়ারম্যান কুদ্দুক বেপারী এই ঘটনা ঘটিয়েছে বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে। আমার একজন লোক আহত হয়। তার নাম আরিফ সরদার (২৫)। তাকে জাজিরা উপজেলা হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা পাঠানো হয়েছে।

মুঠো ফোনে জানতে চেয়েছিলাম মেহের আলী মাদবরকান্দির জলিল মাদবরের কাছে তিনি বলেন, উভয়পক্ষের প্রায় দুই শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটেছে।

জাজিরা থানা অফিসার ইনচার্জ আজহারুল হক বলেন, বিলাশপুরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়েছিল। বেশ কিছু ককটেল বিস্ফোরণ হয়েছে। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ আমি আমাদের অনেক সদস্য নিয়ে হাজির হই। এখন পরিবেশ শান্ত আছে। এ ঘটনায় একজন আহত হয়েছে বলে খবর পেয়েছি।

পিএনএস-জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন