ধর্ষণের শিকার ১৩ বছরের প্রতিবন্ধী কিশোরী ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা

  

পিএনএস ডেস্ক : মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ীতে মানসিক ভারসাম্যহীন কিশোরী (১৩) দুই কিশোরের ধর্ষণের শিকার হয়ে ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় রোববার কিশোরীর পিতা মহিউদ্দিন খান টঙ্গীবাড়ী থানায় বাদী হয়ে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছে।

অভিযোগে জানানো হয়, ২০২০ সালের ১৭ আগস্ট সন্ধ্যায় উপজেলার উত্তর পাইকপাড়া গ্রামের হাসান মিয়ার ছেলে হাবিবুর (১৫) ও আফসার চৌধুরীর ছেলে সানী (১৮) ওই মেয়েকে পাশের পালবাড়ির পরিত্যক্ত বাগানে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

ধর্ষণের শিকার কিশোরী জানান, ৬ মাস আগে আমাদের প্রতিবেশী সানি আমাকে বলে আমার চাচী আমাকে পালের বাড়ি ডাকছে। তার কথায় বিশ্বাস করে আমি সেখানে গিয়ে দেখি হাবিবুর দাঁড়িয়ে আছে। পরে ওরা দুইজনে আমার মুখ চেপে ধরে প্রথমে সানি ও পরে হাবিবুর আমাকে ধর্ষণ করে। আমার চিৎকারে স্থানীয়রা এসে ওদের চর থাপ্পড় দিয়ে তাড়িয়ে দেয়।

কিশোরীর পিতা জানান, কয়েকদিন আগে আমার মেয়ে তার নানী বাড়ি বেড়াতে যায়। সেখানে মেয়ের শারীরিক গঠন দেখে তার নানী তাকে জিজ্ঞাসা করলে মেয়ে ধর্ষণের ঘটনা সব খুলে বলে। পরবর্তীতে আমি মেয়েকে ডাক্তার দেখাই। ডাক্তার বলে মেয়ের পেটে ছয় মাসের বাচ্চা রয়েছে। আমার স্ত্রী অনেক আগেই মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পরিবার থেকে চলে গেছে। মেয়েটাও মানসিক ভারসাম্যহীন।

টঙ্গীবাড়ী থানার ওসি হারুন অর রশিদ জানান, ধর্ষণের ফলে ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার ঘটনায় লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা সাপেক্ষে দুইটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন