গুলশান হামলার আগে আইএস-এর অনুমোদন নিয়েছিলেন তামিম

  

পিএনএস ডেস্ক: গুলশানের হলি আর্টিজানে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা আগে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের অনুমোদন নেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান নাগরিক তামিম আহমেদ চৌধুরী। শেষ পর্যন্ত এতে তিনি সফলও হয়েছিলেন। রয়টার্সের এক বিশ্লেষণে বলা হয়েছে আইএস-এর অনুমোদন পাওয়ার পর হলি আর্টিজান রেস্তোরায়া আক্রমণ করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাংলাদেশ পুলিশের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা রয়টার্সকে জানান, আবু তারেক মোহাম্মদ তাজউদ্দীন কাউসার নামে এক আইএস জঙ্গির সঙ্গে যোগাযোগ ছিল তামিমের। আবু তারেক সবসময়ই সদস্য সংগ্রহের জন্য তামিম চৌধুরীকে তাড়া দিতেন। তাদের দুজনের কথোপকথন প্রত্যক্ষদর্শী ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, বিভিন্ন নথি ঘেটৈ স্পষ্ট হয়েছে যে আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে স্থানীয় জঙ্গিদের সম্পর্ক সুদৃঢ় হয়েছে।

রয়টার্সের বিশ্লেষণ: গুলশান হামলার আগে আইএস-এর অনুমোদন নিয়েছিলেন তামিম

জঙ্গি হামলার পর বাংলাদেশ পুলিশ বেশ কিছু জঙ্গি আস্তানা গুড়িয়ে দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবরই বলে আসছেন দেশে কোনো আইএস জঙ্গি নেই। এসব ঘটনার জন্য ক্ষমতাসীনরা রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ বিএনপি ও জামায়াতকে দায়ী করে আসছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, এরা সবাই স্থানীয় জঙ্গি।

তামিম চৌধুরীর ব্যাপারে বাংলাদেশ নিরাপত্তা বাহিনী সর্বশেষ জানতে পারে গত বছর। কিন্তু তিনি কোথায় আছেন সে ব্যাপারে কিছু জানতো না পুলিশ। গত ডিসেম্বরে পুলিশ তামিমের এক সহযোগীর কাছ থেকে ৩৯ লাখ টাকা জব্দ করে। ওই টাকা ব্রিটেনভিত্তিক তাওলা ক্যাশের মাধ্যমে এসেছিল। টাকা পাঠিয়েছিলেন ওই প্রতিষ্ঠানের মালিক সাইফুল সুজন। যিনি এর কিছুদিন পরই সিরিয়ায় নিহত হন।

তবে ওই টাকা যে ইসলামিক স্টেট এর নির্দেশে পাঠানো হয়েছিল সে বিষয়ে কোনো প্রমাণ জোগাড় করতে পারেনি নিরাপত্তা বাহিনী। হলি আর্টিজানে হামলার প্রস্তুতি শুরু হয় গত জুনে রমজান মাসের শুরুতে।

জুলাইয়ের ১ তারিখে গুলশানের ওই ক্যাফেতে আইএস-এর নামে হামলা চালানো হয়। এতে ২২ জন নিহত হন যাদের বেশিরভাগই ছিলেন বিদেশি নাগরিক।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech