ডিমলায় আকস্মিক ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, আহত ৫

  

পিএনএস, ডিমলা নীলফামারী প্রতিনিধি : আকস্মিক ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আহত -৫ ঘটনাটি ঘটেছে নীলফামারী ডিমলা উপজেলার ৯ নং টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের টেপাখড়িবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ।

প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান ১৫ মে সকাল আনুমানিক ১২ টা ৩০ মিনিটে পশ্চিম দক্ষিণ কোন হতে প্রচন্ড এক কালবৈশাখী ঘূর্নিঝড় বিদ্যালয়ের পূর্ব প্রান্তে ৫ কক্ষ বিশিষ্ট টিন সিড ঘর ধূমড়ে মুচড়ে উড়ে নিয়ে যায়। এতে শিক্ষার্থীরা দৌড়ে আসার সময় গুরুতর আহত হন ৫ জন। আহত শিক্ষার্থীরা হল ৬ষ্ঠ শ্রেনী নজরুল ইসলাম , ১০ শ্রেণী সাগরিকা, ৭ম শ্রেণী আবুজার রহমান ও মহেছেনা । এদের মধ্যে গুরুতর আহত হয় নজরুল ইসলাম তাকে হাতীবান্ধা সদর হাসপাতালে তবে তার পরিবারবর্গ বলেছেন সে এখন বিপদমুক্ত ।

বিদ্যালয়ের বিষয়ে প্রধান শিক্ষক ফাতিমা খাতুনের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ওইদিন আমি উপজেলায় প্রশিক্ষণে ছিলাম ঘটনার বিবরন শোনা মাত্র সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোতে অবগত করেছি। বিদ্যালয়ে আমরা একের পর এক ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছি গত বন্যায় এবং সেদিনের ঘূর্নিঝড়ে ১০ থেকে ১১ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে । সরকারি ব্যবস্থা ছাড়া ঘুরে দাড়াবার মত আর কোন উপায় নাই।

অপরদিকে উক্ত বিদ্যালয়ের সভাপতি মইনুল হক বলেন বিগত ১৬ সালের বন্যায় স্কুলভবন নদীগর্ভে বিলীন হয় এর ফলে ডালিয়া সিলট্রাপে প্রায় ১ বছর থাকার পর এই এলাকার সকল আপামার জনগণের স্বেচ্ছাশ্রমে বালুর বাধ নির্মানের পর পুণরায় প্রতিষ্ঠানটি নিজ জায়গায় স্থলা ভিসিক্ত হয়। সেই বন্যায়ে ক্ষতিগ্রস্থ ভবন অর্থ সংকটে নির্মাণ করা আজও সম্ভব হয়নি, আবারও ১৫ মে আকস্মিক ঝড়ে বিধস্থ হলো প্রতিষ্ঠানের অপর অংশ। যার ফলে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা খোলা আকাশের নিচে পাঠদান করছেন। বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোর প্রতি সাহায্যের হাত প্রসারিত করার জন্য আহবান জানান।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech